সুন্নাত তরীকায় মেয়ে দেখার পদ্ধতি ও বিবাহের নিয়ম

সুন্নাত তরীকায় মেয়ে দেখা ও বিবাহ
সুন্নাত তরীকায় মেয়ে দেখা ও বিবাহ

সার্বিক বিবেচনায় কোনো পরিবারের মেয়েকে পাত্রী হিসেবে গ্রহণ করতে সংকল্পবদ্ধ হওয়ার পর তার সৌন্দর্যের বিষয়ে ধারণা লাভের উদ্দেশ্যে একমাত্র বরের জন্য  কোনও উপায়ে সম্ভব হলে কনের মুখমণ্ডল হাত ও পদযুগল দেখার অনুমতি আছে।

বর পক্ষের অন্যকোন পুরুষের জন্য দেখার অনুমতি নেই।

বিবাহের সুন্নাত তরীকাঃ

পাত্রী অন্যান্য প্রসঙ্গ নিশ্চিত হওয়ার পর সামার্থ্যানুযায়ী মহর নির্ধারণ করে কোন জুম’আর দিন মসজিদে কোন আলেমে দ্বীনের মাধ্যমে বিবাহ পড়িয়ে নিবে।

মাওলানা সাহেব মাসনুন খুৎবা পাঠের পর কনে পক্ষের অনুমতিক্রমে বরের উদ্দেশ্যে বলবেন যে, অমুকের মেয়ে অমুককে এত টাকা মহরের বিনিময়ে তোমাকে নিকাহ দিলাম।

তারপর বর অন্তত দু’জন বালেগ পুরুশ শুনে এমনভাবে “কবুল করলাম” বলবে।

এরপর সকলে নিম্নের দুয়াটি পড়বেঃ

بارك الله لك، وبارك عليك، وجمع بينكمافي خير

অতঃপর বরপক্ষ কিছু খুরমা বিতরণ করবে। বিবাহের বা বাসরের পর বরপক্ষ সাধ্যানুযায়ী আত্মীয়, বন্ধু-বান্ধব ও প্রতিবেশীদের দাওয়াতের ব্যবস্থা করবে। যাকে ‘ওলিমা’ বলে।

ওলিমার সুন্নাত খাওয়া দাওয়ার মাধ্যমে যেমন আদায় হয়, নাশতা ইত্যাদির মাধ্যমেও এ সুন্নাত আদায় করা যেতে পারে। উল্লিখিত পদ্ধতিতে বিবাহ করার নির্দেশ রাসুল সাঃ করেছেন।

সুনানে তিরমিজিঃ২৫৮/৩, আল বাহরুর রায়েকঃ ১৪৪/৩