বিবাহের হুকুম কি? কখন বিবাহ করা ফরয?

what-is-the-order-of-the-wedding-when-is-marriage-obligatory
what-is-the-order-of-the-wedding-when-is-marriage-obligatory

মানুষের শারিরীক ও মানসিক বিভিন্ন দিক লক্ষ করে বিবাহের হুকুম ৬ টিঃ-

এক- যদি কারো মাঝে ৪ টি জিনিস বিদ্ধমান থাকে, তাহলে বিবাহ করা ফরয।

(ক) যৌন চাহিদা প্রবল। (খ) যিনায় লিপ্ত হওয়ার আশংকা (গ) ভরণ পোষণে ও মোহর আদায়ে সক্ষম। (ঘ) স্ত্রীর প্রতি অত্যাচারের আশংকা না থাকা।

 

দুই- যদি যৌন চাহিদা খুব বেশী থাকে কিন্তু যিনায় লিপ্ত হওয়ার আশংকা কম থাকে,  তবে মোহর আদায়ে সক্ষম এবং স্ত্রীকে নির্যাতনের আশংকা না থাকে, তাহলে বিবাহ করা ওয়াজিব।

 

তিন- যদি যৌন চাহিদা স্বাভাবিক থাকে, গুনাহে লিপ্ত হওয়ার আশংকা না থাকে, তাহলে বিবাহ করা সুন্নাত।

 

চার- যদি কামভাব প্রবল থাকে, যিনায় লিপ্ত হওয়ার আশংকা নেই। মোহর আদায়ের সক্ষম তাহলে বিবাহ করা মুবাহ বা জায়েয।

 

পাচ- যদি স্ত্রীর প্রতি অত্যাচারের আশংকা হালকা থাকে এবং যিনায় লিপ্ত হওয়ার আশংকা না থাকে, তাহলে নিজের পরিশুদ্ধ হওয়া পর্যন্ত বিবাহ করা মাকরুহ।

 

ছয়- যদি স্ত্রীর প্রতি নির্যাতনের নিশ্চিত সম্ভাবনা থাকে, তাহলে নিজের নিজের সংশোধনের আগ পর্যন্ত বিবাহ করা সম্পুর্ণ হারাম ।

 

অধুনা বিবাহ উপলক্ষে বিজাতীয় সংশ্রব থেকে অনেক কুসংস্কার ও গর্হীত রীতি মুসলিম সমাজে প্রবেশ করেছে। এগুলো বিবাহের বরকত নষ্ট করে দেয়া ছাড়াও অনেকাংশে মুসলমানদের দ্বীন ও ঈমানের জন্য ভয়ংকর ক্ষতিকারক হয়ে দাঁড়ায়। এসব কু-প্রথা ও নাজায়িয রীতি থেকে মুসলমানদের দূরে থাকা অবশ্যই কর্তব্য।